1. admin@gaibandhapratidin.com : Milon Sarkar : Milon Sarkar
গাইবান্ধায় অপহরণের পর হত্যা মামলার কথিত মৃত ব্যক্তিকে ২০ মাস পর জীবিত উদ্ধার পিবিআই • গাইবান্ধা প্রতিদিন
মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সুন্দরগঞ্জে চাঞ্চল্যকর শিশু শুভ হত্যা মামলার ১০ আসামি খালাস গাইবান্ধার কোটি টাকা মূল্যের বিরল প্রজাতির ছয়টি তক্ষক উদ্ধার ও ৪জনকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১৩ সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্যের জাগরণ গোবিন্দগঞ্জে ওড়াঁও জনগোষ্ঠীর কারাম উৎসব পালন গাইবান্ধায় অপহরণের পর হত্যা মামলার কথিত মৃত ব্যক্তিকে ২০ মাস পর জীবিত উদ্ধার পিবিআই সাদুল্লাপুরে ঘরবাড়ি ভাংচুর করে লুটপাটঃ পত্রিকায় প্রকাশিত মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদে মাহাবুর রহমান (সাবেক মেম্বার) এর সংবাদ সম্মেলন ২১ আগস্ট বর্বরোচিত হত্যাকান্ডে সকল শহীদদের স্মরণে গাইবান্ধায় উপজেলা পরিষদের দোয়া ও তবারক বিতরণ অর্থাভাবে তিন মাসেও যোগাতে পারেনি মায়ের ঔষধ টাকা” বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের আহাজারি। প্রান বাচাঁতে গণমাধ্যমকর্মীর ঘোড়াঘাট ওসির বিরুদ্ধে সাংবাদিক বাবুর সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জে বাসচাপায় মোটরসাইকেল চালক ও আরোহীসহ নিহত ৩ গাইবান্ধায় ফুটবল খেলার মাঠ থেকে ৬০ লিটার মদ উদ্ধার করেছে পুলিশ

গাইবান্ধায় অপহরণের পর হত্যা মামলার কথিত মৃত ব্যক্তিকে ২০ মাস পর জীবিত উদ্ধার পিবিআই

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২১ আগস্ট, ২০২১
  • ৯ বার পঠিত
গাইবান্ধায় অপহরণের পর হত্যা মামলার কথিত মৃত ব্যক্তিকে ২০ মাস পর জীবিত উদ্ধার করেছে (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) পিবিআই। আজ ২১ আগস্ট শনিবার দুুপুরে গাইবান্ধা কার্যালয়ে এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে করে এ তথ্য নিশ্চিত করে গাইবান্ধা পিবিআই।
এ সংবাদ সম্মেলনে গাইবান্ধা জেলা পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার এ আর এম আলিফ জানান, জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ডোমেরহাট ইউনিয়নের সূবর্ণদহ গ্রামের জাহিদুল ইসলামের মেয়ে মোছাঃ জান্নাতি বেগমের সাথে পাশ্ববর্তী নিজপাড়া গ্রামের মোঃ ওয়াসিম জাহান তৌহিদের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এর এক পর্যায়ে জান্নাতি গর্ভবতি হলে স্থানীয়দের চাঁপে তাদের বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের পরে ওয়াসিম যৌতুক দাবি করায় মেয়ে পক্ষ তা দিয়ে অস্বীকার করলে জান্নাতিকে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেয় ওয়াসিম।
এ ঘটনায় জান্নাতি বাদী হয়ে সুন্দরগঞ্জ পারিবারিক আদালতে মামলা করলে ২০১৯ সালের ৮ ডিসেম্বর নিজে আত্মগোপন করে ওয়াসিম। এরপর তার বড় ভাই মানজুমুল হুদা নাহিদ বাদী হয়ে সুন্দরগঞ্জ আদালতে ওয়াসিমের স্ত্রী জান্নাতি ও তার পরিবারের ৭ জনের বিরুদ্ধে ওয়াসিমকে অপহরন করে হত্যা ও গুমের মামলা করে।
২০২০ সালের ৩০ জানুয়ারি আদালত মামলার তদন্তভার পিবিআইকে হস্তান্তর করে। দীর্ঘ তদন্ত শেষে গত ১৯ আগষ্ট পিবিআইয়ের পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আবদুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে পিবিআই এর একটি দল গাজিপুর জেলার মোগরখাল এলাকার টিএনজেএড নামের একটি ফেক্টরি থেকে কথিত মৃত ওয়াাসিমকে জীবিত উদ্ধার করে। আজ বিকালে তাকে আদালতে হাজির করা হবে। কথিত মৃত ওয়াাসিম দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্ন পোশাক কারখানায় চাকুরী করে আসছিল বলে জানায় পিবিআই।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর...

© ২০২০-২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | গাইবান্ধা প্রতিদিন

Theme Customized BY LatestNews