1. admin@gaibandhapratidin.com : Milon Sarkar : Milon Sarkar
প্রশাসনের পদক্ষেপ না থাকায় সাদুল্লাপুরে কোন ভাবেই বন্ধ হচ্ছে না বালু উত্তোলন। • গাইবান্ধা প্রতিদিন
মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সুন্দরগঞ্জে চাঞ্চল্যকর শিশু শুভ হত্যা মামলার ১০ আসামি খালাস গাইবান্ধার কোটি টাকা মূল্যের বিরল প্রজাতির ছয়টি তক্ষক উদ্ধার ও ৪জনকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১৩ সাংস্কৃতিক বৈচিত্র্যের জাগরণ গোবিন্দগঞ্জে ওড়াঁও জনগোষ্ঠীর কারাম উৎসব পালন গাইবান্ধায় অপহরণের পর হত্যা মামলার কথিত মৃত ব্যক্তিকে ২০ মাস পর জীবিত উদ্ধার পিবিআই সাদুল্লাপুরে ঘরবাড়ি ভাংচুর করে লুটপাটঃ পত্রিকায় প্রকাশিত মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদে মাহাবুর রহমান (সাবেক মেম্বার) এর সংবাদ সম্মেলন ২১ আগস্ট বর্বরোচিত হত্যাকান্ডে সকল শহীদদের স্মরণে গাইবান্ধায় উপজেলা পরিষদের দোয়া ও তবারক বিতরণ অর্থাভাবে তিন মাসেও যোগাতে পারেনি মায়ের ঔষধ টাকা” বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের আহাজারি। প্রান বাচাঁতে গণমাধ্যমকর্মীর ঘোড়াঘাট ওসির বিরুদ্ধে সাংবাদিক বাবুর সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জে বাসচাপায় মোটরসাইকেল চালক ও আরোহীসহ নিহত ৩ গাইবান্ধায় ফুটবল খেলার মাঠ থেকে ৬০ লিটার মদ উদ্ধার করেছে পুলিশ

প্রশাসনের পদক্ষেপ না থাকায় সাদুল্লাপুরে কোন ভাবেই বন্ধ হচ্ছে না বালু উত্তোলন।

শেখ মোঃ সাইফুল ইসলাম নিজস্ব প্রতিনিধিঃ।
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৬ জুন, ২০২১
  • ৩৯ বার পঠিত

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার ঘাঘট নদী থেকে কোন ভাবেই বন্ধ হচ্ছে না, অবৈধভাবে বালু উত্তোলন। অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের ফলে নদী ভাঙ্গনসহ কৃষি জমি ও বসতবাড়ি বিলীন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে মনে করছেন ঘাঘট দনীর তীর বর্তি এলাকার ভুক্তভোগি সাধারণ জনগণ। এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হলেও, প্রশাসনের পক্ষ থেকে কার্যকারি পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি বলেও তাদের ব্যাপক অভিযোগ। সরেজমিনে গিয়ে শনিবার (৫ জুন) দুপুরে উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের মধ্য ভাঙ্গামোড় এলাকার ঘাঘট নদী থেকে অবৈধ ভাবে অবাধে বালু উত্তোলনের চিত্র দেখা যায়।

জানা যায়, দামোদরপুর ইউনিয়নের দামোদরপুর (বুড়িরভিটা) গ্রামের বালু খেকো ও অবৈধ বালু ব্যবসায়ী মন্টু মিয়া তার নিজস্ব ড্রেজার মেশিন, মধ্যভাঙ্গামোড় ঘাঘট নদীতে বসিয়ে নির্বিকারে বালু উত্তোলন করে আসছে। নদী থেকে প্রায় এক কিলোমিটার পাইপ টেনে স্থানীয় শহিদুজ্জামানের ছেলে সবুজ মিয়ার বাড়ির খাল ভরাট করা হচ্ছে। মোটা অংকের চুক্তির মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরে বালু উত্তোলন বানিজ্য করে চলছেন মন্টু মিয়া। ঐ স্থানে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের কারণে নদীর পানি প্রবাহ কমে যাওয়াসহ বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন সৃষ্টি হচ্ছে। একই সঙ্গে কৃষি জমি ও বসতভিটাও পড়েছে হুমকির মুখে।

পাশপাশি মেশিনের বিকট শব্দে অতিষ্ঠ হয়ে পড়ছে আশপাশের সাধারণ মানুষ। এলাকাবাসী জানায়, এই বালু বানিজ্য শুধু মধ্য ভাঙ্গামোড় এলাকায় নয়। অসাধু বালু ব্যবসায়ীরা স্থানীয় ক্ষমতাসীন ব্যক্তি ও প্রশাসনকে ম্যানেজ করে একাধিক প্রভাবশালী চক্র উপজেলার বেশ কিছু স্থানে বালু উত্তোলনের মহোৎসব চালাচ্ছে। এমন অভিযোগ একাধিক ভুক্তভোগি পরিবারের নিকট থেকে মিলেছে। এছাড়াও দামোদরপুরের পাটনীপাড়া নামকস্থানে বালু তোলার প্রস্তুতি নিচ্ছে ফুলমিয়া নামের এক বালুদস্যু।

মধ্য ভাঙ্গামোড় স্থানের বালু ব্যবসায়ী মন্টু মিয়া জানান, বিভিন্ন জায়গা দোয়া-তাবিজ ও তদবির করে ড্রেজার মেশিন দিয়ে এইসব বালু নদী থেকে উত্তোলন করা হচ্ছে। এ বিষয়ে দামোদরপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান এজেডএম সাজেদুল ইসলাম স্বাধীনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে গণমাধ্যমকর্মী তাকে পায়নি। পরবর্তী বিষয়টি সাদুল্লাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাসুদ রানার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ কারা হলে, তিনি বলেন, মধ্য ভাঙ্গামোড় এলাকায় বালু উত্তোলন হচ্ছে, এ বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর...

© ২০২০-২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | গাইবান্ধা প্রতিদিন

Theme Customized BY LatestNews