1. shahriarltd@gmail.com : GaibandhaPratidin :
  2. maydul@gaibandhapratidin.com : Maydul :
  3. info@gaibandhapratidin.com : Milon Sarkar : Milon Sarkar
  4. raju@gaibandhapratidin.com : Raju Sarker : Raju Sarker
  5. srridoy121@gmail.com : Samsur Rahman Ridoy : Samsur Rahman Ridoy
শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ১২:০১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ফুলছড়িতে সাংবাদিকদের সাথে সমাজসেবক আব্দুর রশিদ বিদ্যুৎ’র মতবিনিময় আগামী প্রজন্ম কে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থেকে রক্ষা করতে খেলাধুলার কোন বিকল্প নেই-এ্যাড. উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি  ধানের সাথে ফেন্সিডিল মজুত পরিকল্পনা? ” স্বপ্ন চুড়ায় পৌঁছানোর আগেই গোয়েন্দার হাতে চাতাল ব্যবসায়ী মোতাহার আটক ! ফুলছড়িতে সাংবাদিকদের সাথে ওসির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত গাইবান্ধায় বিএনপির নেতা খন্দকার আহাদ আহমেদের উদ্যোগে শারদীয় দূর্গোৎসব উপলক্ষে দরিদ্র সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে শাড়ি বিতন সুন্দরগঞ্জে ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের আনন্দ মিছিল গোবিন্দগঞ্জে বিদ্যুৎ বিভাগের বিরুদ্ধে মানববন্ধণ ও স্মারক লিপি প্রদান গাইবান্ধায় চাচার ধর্ষণের শিকার ষষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুল ছাত্রী! গাইবান্ধায় স্বতন্ত্র মাদ্রাসা জাতীয়কররণের দাবীতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় রাজাহার ইউনিয়নে ইউপি সদস্য পদে এভিএমএ অনুষ্ঠিত উপনির্বাচনে জলি বেগম নির্বাচিত

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গোবিন্দগঞ্জের সকল যোগ্য ব্যাক্তিরা বিনা পয়সায় বয়স্ক ও বিধবা ভাতা কার্ড পাবেন||

শামীমা ইসলাম সুমী গোবিন্দগঞ্জ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১১৫
বয়স্ক ও বিধবা ভাতা কার্ড পেতে কোনো জনপ্রতিনিধি ও দালাল গোষ্ঠীকে ঘুষ দেওয়ার প্রয়োজন নেই।সরাসরি অনলাইনে আবেদনের মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত লক্ষ বাস্তবায়নে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের ১৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার সকল বয়স্ক ও বিধবা ভাতা প্রাপ্তির যোগ্যদের তালিকাভুক্ত করে ভাতা কার্ড প্রদানের উদ্যেগ গ্রহণ করেছেন সরকার।
এ উদ্যেগ বাস্তবায়নের লক্ষে আগামী ১০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে গোবিন্দগঞ্জের ১৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার সকল বয়স্ক ও বিধবা ভাতা প্রাপ্তির যোগ্য প্রার্থীদেরকে অনলাইনে আবেদনের জন্য বলা হয়েছে।২৭ আগষ্ট গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রামকৃষ্ণ বর্মণ ও উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা শফিউল ইসলাম জুয়েল স্বাক্ষরিত গোবিন্দগঞ্জ সমাজ সেবা কার্যালয় থেকে ঘোষিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে -২০২০-২০২১ অর্থ বছরের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার ১৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার বয়স্ক ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলা ভাতা প্রদানে শতভাগ উন্নিতের লক্ষ্যে যোগ্য ব্যাক্তিদের নিকট হতে আবেদন গ্রহণ করা হচ্ছে।আবেদনের শেষ তারিখ ১০সেপ্টেম্বর।
পৌরসভা কার্যালয়, ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টার অথবা যেকোনো সুবিধামতো স্থান থেকে www.bhata.gov.bd ওয়েব সাইটে প্রবেশ করে আবেদন করতে হবে।নীতিমালা অনুযায়ী বয়স্ক ভাতা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে পুরুষের জন্য ৬৫ বছর ও মহিলার জন্য ৬২ বছর বয়স হতে হবে।বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলাদের ক্ষেত্রে স্বামী মৃত্যুর সনদ ও নিগৃহীতার সনদ থাকতে হবে।
অনলাইনে আবেদনের পর আবেদনের হার্ড কপির সঙ্গে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংযুক্ত করে উপজেলা সবাজসেবা কার্যালয়/পৌরসভা কার্যালয়/ ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয়ে আবেদনের হার্ড কপিতে স্বাক্ষর/ টিপসহিসহ জমা দিতে হবে।
প্রয়োজনীয় যেসকল কাগজপত্র জমা দিতে হবে-তা হলো-আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি -১(এক)কপি,আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের ছবি -৪(চার)কপি,বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলাদের ক্ষেত্রে আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি -১(এক)কপি,স্বামী মৃত্যুর সনদ/নিগৃহীতার প্রত্যায়নপত্র কপি,পাসপোর্ট সাইজের ছবি ৪(চার)কপি।নমিনীর ক্ষেত্রে নমিনীর জাতীয় পরিচয় পত্র/জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি ১(এক)কপি,পাসপোর্ট সাইজের ছবি -২(দুই)কপি।আবেদনকারীর নিজস্ব অথবা পরিবারের ব্যাবহৃত মোবাইল নম্বর আবেদন কপিতে সংযুক্ত করতে হবে।
এ তথ্য নিশ্চিত করে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা শফিউল ইসলাম জুয়েল জানিয়েছেন বিজ্ঞপ্তির ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ১০সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভাতা প্রাপ্তির যোগ্য ব্যাক্তিদের নিকট আবেদন গ্রহণ করা হবে। তারপর আবেদন যাচাই-বাচাই পূর্বক ভাতা কার্ড প্রদান করা হবে।তিনি জানিয়েছেন ভাতা কার্ডে প্রপ্তিতে কোনো টাকা লাগেনা, যোগ্য ব্যাক্তিরা সকলেই ভাতা কার্ড পাবেন।তাই তিনি আর্থিক লেনদেন থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।
প্রসঙ্গত:–দেশের বয়োজ্যেষ্ঠ দুস্থ ও স্বল্প উপার্জনক্ষম অথবা উপার্জনে অক্ষম বয়স্ক জনগোষ্ঠীর সামাজিক নিরাপত্তা বিধানে ও পরিবার ও সমাজে মর্যাদা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ১৯৯৭-৯৮ অর্থ বছরে ‘বয়স্কভাতা’ কর্মসূচি প্রবর্তন করা হয়। প্রাথমিকভাবে দেশের সকল ইউনিয়ন পরিষদের প্রতিটি ওয়ার্ডে ৫ জন পুরুষ ও ৫ জন মহিলাসহ ১০ জন দরিদ্র বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তিকে প্রতিমাসে ১০০ টাকা হারে ভাতা প্রদানের আওতায় আনা হয়। পরবর্তীতে দেশের সকল পৌরসভা ও সিটিকর্পোরেশন এ কর্মসূচির আওতাভুক্ত করা হয়।
বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নের অঙ্গিকার হিসেবে ২০২১ সালের মধ্যে বয়স্কভাতা -ভোগীর সংখ্যা দ্বিগুণ করার লক্ষ্যে ক্ষমতা গ্রহণোত্তর ২০০৯-১০ অর্থ বছরে বয়স্কভাতাভোগীর সংখ্যা ২০ লক্ষ জন থেকে বৃদ্ধি করে ২২ লক্ষ ৫০ হাজার জনে এবং জনপ্রতি মাসিক ভাতার হার ২৫০ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৩০০ টাকায় উন্নীত করা হয়। ২০২০-২১ অর্থ বছরে ৪৯ লক্ষ বয়স্ক ব্যক্তিকে জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা হারে ভাতা প্রদান করা হবে। চলতি ২০২০-২১ অর্থ বছরে এ খাতে বরাদ্দ রয়েছে ২৯৪০ কোটি টাকা। সমাজসেবা অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে এ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।
বর্তমানে বয়স্কভাতা কার্যক্রমে অধিকতর স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ এবং সর্বমহলে গ্রহণযোগ্য করে তোলার জন্য যে সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে তা হলো- ২০১৩ সালে প্রণীত বাস্তবায়ন নীতিমালা সংশোধন করে যুগোপযোগীকরণ, অধিক সংখ্যক মহিলাকে ভাতা কার্যক্রমের আওতায় অন্তর্ভুক্তির লক্ষ্যে মহিলাদের বয়স ৬৫ বছর থেকে কমিয়ে ৬২ বছর নির্ধারণ, উপকারভোগী নির্বাচনে স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ অন্যান্য জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্তকরণ, ডাটাবেইজ প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ এবং ১০ টাকার বিনিময়ে সকল ভাতাভোগীর নিজ নামে ব্যাংক হিসাব খুলে ভাতার অর্থ পরিশোধ করা হচ্ছে।
অন্যদিকে বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলা ভাতা ১৯৯৮-৯৯ অর্থ বছরে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন সমাজসেবা অধিদফতররের মাধ্যমে বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলাদের ভাতা কর্মসূচি প্রবর্তন করা হয়। ঐ অর্থ বছরে ৪ লক্ষ ৩ হাজার ১১০ জনকে এককালীন মাসিক ১০০ টাকা হারে ভাতা প্রদান করা হয়। ২০০৩-০৪ অর্থ বছরে এ কর্মসূচিটি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করা হয়।
বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা মহিলা ভাতা কর্মসূচি বাস্তবায়নে অধিকতর গতিশীলতা আনয়নের জন্য বর্তমান সরকার পুনরায় ২০১০-১১ অর্থ বছরে এ কর্মসূচি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করে। বর্তমান সরকারের উদ্যোগে প্রবর্তিত এ কর্মসূচি সমাজসেবা অধিদফতর বাস্তবায়ন করছে। এ কর্মসূচির আওতায় ২০২০-২১ অর্থ বছরে ২০ লক্ষ ৫০ হাজার জন ভাতাভোগীর জন্য জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা হারে মোট ১২৩০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।
মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় হতে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত হওয়ার পর এ কর্মসূচিতে অধিকতর স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ এবং সর্বমহলে গ্রহণযোগ্য করে তোলার জন্য বিগত ৬ বছরে যে সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে
এ জাতীয় আরো খবর...

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | গাইবান্ধা প্রতিদিন

Theme Customized BY LatestNews