1. shahriarltd@gmail.com : GaibandhaPratidin :
  2. maydul@gaibandhapratidin.com : Maydul :
  3. info@gaibandhapratidin.com : Milon Sarkar : Milon Sarkar
  4. raju@gaibandhapratidin.com : Raju Sarker : Raju Sarker
  5. srridoy121@gmail.com : Samsur Rahman Ridoy : Samsur Rahman Ridoy
বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:২৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মায়ের কোলে তুলে দিলেন বিক্রি করা শিশু সন্তানকে-গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক আব্দুল মতিন গোবিন্দগঞ্জে সরকারী পুকুর খনন করে মাটি বিক্রি॥ গোয়াল ঘর ভেঙ্গে পরে ৭টি গরুর মৃত্যু বালু ভর্তি ট্রাকে ফেন্সিডিলের খনি, ট্রাক চালক হেলপার নিজেরাই মাদক ব্যবসায়ী! এরশাদ – সাদেকুল শিকার পুলিশের বেড়াজালে? গাইবান্ধার কামারজানিতে ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট শাখার শুভ উদ্বোধন তোমার দুটি আখি-ফেরদৌস মন্ডল মাদকের আখড়া গোবিন্দগঞ্জ! ফের অভিযান থানা পুলিশের! ! ফেনসিডিলসহ চেয়ারম্যানের ছেলে রকিবুল ও তারসহযোগী তাহের আটক ? বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি রক্ষায় জমি দান করলেন ড. মোঃ লতিফুর রহমান সরকার ওয়ার্ল্ড ক্লিনআপ ডে’ পালন করলো বাহরাইন বাংলাদেশ সোসাইটি যুব সমাজকে মাদক বিমুখ করতে জ্ঞাণ ও ক্রিড়া চর্চায় সুন্দরগঞ্জের এমপি’র নানা পদক্ষেপ গাইবান্ধায় আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠিত

গাইবান্ধায় এক প্রসূতিকে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে ভর্তি না নেওয়ায় রাস্তায় সন্তান প্রসব

মোঃ রাজু সরকার- স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২০
  • ১৬৩

গাইবান্ধায় মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে ঠাঁই না পাওয়ায় রাস্তার পাশে এক পরিত্যক্ত ঘরে সন্তান প্রসব করেছেন এক প্রসূতি। বুধবার রাতে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র থেকে বিতাড়িত হয়ে শহরের ডিবি রোডে সন্তান প্রসব করেন তিনি। পরে পুলিশের সহযোগীতায় অসুস্থ অবস্থায় মা ও শিশুকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

স্বজনদের অভিযোগ, প্রসব বেদনা উঠলে সাঘাটা উপজেলার বোনারপাড়া থেকে সিনএনজিযোগে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে রওনা দেন তারা। সেখানে পৌঁছার পর মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের পরিদর্শিকা সেলিনা বেগম কোন পরীক্ষা ছাড়াই অন্তঃসত্ত্বা ওই নারীকে অন্যত্র যেতে বলেন। পরিবারের পক্ষ থেকে একাধিকবার অনুরোধ করা হলেও কর্ণপাত না করে উল্টো গালিগালাজ করে বের করে দেয়া হয় তাদের। পরে বিতাড়িত হয়ে শহরের ডিবি রোডের পরিত্যক্ত ঘরে মেয়ে সন্তান প্রসব করেন ঐ প্রসূতি মা। এরপরে এলাকাবাসী ও পুলিশের সহযোগীতায় অসুস্থ অবস্থায় মা ও শিশুকে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তবে সব অভিযোগ অস্বীকার করে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের পরিদর্শিকা সেলিনা বেগম জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ার ভয়ে প্রসূতিকে ভর্তি করা হয়নি। তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেয়া হয়।

এ বিষয়ে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. আমিনুল ইসলাম জানান, প্রসূতি মা ও শিশুকে গাইনি ডাক্তারের পরামর্শে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। বর্তমানে মা ও শিশু দুজনেই সুস্থ রয়েছেন।

এদিকে, প্রসূতি মায়েদের স্বাভাবিকভাবে সন্তান প্রসবের একমাত্র ভরসাস্থল মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র হলেও এর আগে গত ৬ই এপ্রিল সদর উপজেলার লক্ষীপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের অন্তঃসত্ত্বা মিষ্টি আকতারকে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র থেকে তাড়িয়ে দেন কেন্দ্রের সিনিয়র স্বাস্থ্যকর্মী তৌহিদা বেগম। কেন্দ্রের কয়েকশ’ গজ দূরেই অটোরিকশায় সন্তান প্রসব করেন ওই নারী। একের পর এক এমন ঘটনায় স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী ও বিশিষ্টজ

এ জাতীয় আরো খবর...

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | গাইবান্ধা প্রতিদিন

Theme Customized BY LatestNews